করোনা থেকে বাঁচতে কোলাঘাট সেচ্ছাসেবী সংস্থার নানাবিধ উদ্দোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পূর্ব মেদিনীপুর:– করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে কোলাঘাটে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার একটানা নানাবিধ কর্মসূচি চলছে। ১৯শে মার্চ থেকে চলছে এলাকার বিভিন্ন সাপ্তাহিক হাটে ও প্রাত্যহিক বাজারে মাইক সহোযোগে গুজবে কান না দেওয়ার ঘোষনা। ক্রেতা বিক্রেতাদের মধ্যে বলা হচ্ছে যার যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই বেচাকেনা করুন। হুড়োহুড়ি করে মাত্রা তিরিক্ত নিত্য সামগ্রি কিনে ঘরে মজুত করার প্রয়োজন নেই। পাইকারি ও খুচরা দোকানে গিয়ে আবেদন করা হচ্ছে, অনৈতিক ভাবে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মজুত করে কৃত্রিম চাহিদাও সৃষ্টি করবেননা, ন্যায্যমূলে দ্রব্যাদি সরবরাহ করুন। এর পাশাপাশি রেল স্টেশন, বাস স্ট্যান্ড, ফুলের হাটে ও পাড়ায় পাড়ায় মাইক, পোস্টার, প্রচারপত্র ছাপিয়ে মানুষদের সচেতন করার কর্মসূচি চালানো হচ্ছে। বিভিন্ন ভাবে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত মারনঘাতি ও নিরোগ থাকার বিষয় গুলো তুলে ধরছেন কোলাঘাটের এই স্বেচ্ছা সেবী প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছা সেবীরা। সংস্থার পক্ষে রবীন্দ্রনাথ দাস জানান যে “আমরা এই বিশ্বত্রাস মরনব্যাধী র প্রকোপ এড়াতে চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ এবং রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার প্রশাসনের সব নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলা ও পালন করার চেষ্টা করুন। সংস্থার পক্ষে তিনশো জনকে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

২১ মার্চ জনতা কার্ফু সফল করার সাথে সাথে কটাদিন ঘরবন্দী থাকার জন্য ছয়টি পথসভা সংগঠিত হয়েছে বলে জানানো হয়। আজ ২২ মার্চ বৈকালে সরকারি প্রস্তাব অনুযায়ী কয়েকটি পাড়ায় বাড়ির লোকেদের বাইরে বেরিয়ে শঙ্খ, ঝাঁঝ,কাঁসর, উলুধ্বনি ও হাততালি দিতে উদ্বুদ্ধ করা হয়। যাঁরা জীবন বিপন্ন করে, দিন রাত এক করে আমাদের চিকিৎসা ও পরিষেবায় কাজ করে চলেছেন তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানাতে এই প্রয়াস। জনসচেতনতায় একটি সুস্বজ্জিত ট্যাবলো আগামী কাল থেকে তিনদিন সারা কোলাঘাট ঘুরে বেড়াবে ও প্রচারপত্র বিলি করা হবে বলে সংস্থার পক্ষে সন্দিপ হাজরা জানিয়েছেন।




%d bloggers like this: