খরগোপুর শহরে তৃণমূল গোষ্ঠীদন্ধ: একাংশের ক্ষোভ


নিজস্ব সংবাদদাতা,পশ্চিম মেদিনীপুর: জেলা তৃণমূল নতুন কমিটি গঠন হতেই খরগোপুর শহরে তৃণমূলের অন্দরে দেখা দিল বিদ্রোহ। খরগোপুর শহরে দেয়া হয়েছে ফ্লেক্স। সম্প্রতি ভার্চুয়াল বৈঠক করে জেলায় কো-অর্ডিনেটর হিসাবে তিন জনকে নিয়োগ করেছে রাজ্য তৃণমূল । তারমধ্যে নাম রয়েছে বর্তমানে তৃণমূলের বিধায়ক প্রদীপ সরকার। নাম না করে তার বিরুদ্ধেই বিদ্রোহ ঘোষণা শহরে তৃণমূলের একাংশের। অভিযোগ দলের বহু পুরানো নেতাকর্মীকে গুরুত্ব না দিয়ে সম্প্রতি তৃণমূলে আশা কর্মীদের কে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে তাদের। এর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ তৃণমূলের একাংশের । সর্বজনবিদিত তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব খরগোপুর শহরে । তারই বহিঃপ্রকাশ হলো এবার । খরগোপুর শহরে মালঞ্চ তে তৃণমূলের পার্টি অফিসে বসেই একদা খড়গপুর শহরের তৃণমূলের সভাপতি দেবাশীষ চৌধুরী বলেন দল কর্মীদের আবেগকে গুরুত্ব দিচ্ছে না । যারা দীর্ঘদিন সিপিএমের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে এসেছে লড়াই করে এসেছে তাদেরকে পিছনের সারিতে ঠেলে দিয়ে দলের বহু পুরানো কর্মীর গুরুত্ব হারাচ্ছে দল । দেবাশীষ চৌধুরী ঘনিষ্ঠ এক তৃণমূল কর্মী তো বলেই দিলেন দল যদি এভাবে তাদেরকে গুরুত্ব না দেয় তাহলে আগামী দিনে তারাও ভাববে, বলে আদৌ থাকবে কিনা । নাম না করেই যার বিরুদ্ধে অভিযোগ, সেই প্রদীপ সরকার এর সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান যারা করছে তারা কেউ তৃণমূলের কর্মী নন পুরোপুরি বিজেপির পরিকল্পনামাফিক কাজ চলছে। এদিকে খর্গপুর শহরের তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি রবি শংকর পান্ডে জানান বিষয়টি এসেছে তিনি খোঁজখবর নিয়ে দেখবেন। অন্যদিকে বিজেপি নেতা দিপসনা ঘোষের মন্তব্য তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আগেও ছিল যা আরো প্রকাশ্যে আসলো।

শেয়ার করুন