গঙ্গা ভাঙ্গনের ১৫ দিনের মধ্যে দুর্গতদের মধ্যে পাট্টা তুলে দিল মালদা জেলা প্রশাসন

মালদা:-গঙ্গা ভাঙ্গনের ১৫ দিনের মধ্যে দুর্গতদের মধ্যে পাট্টা তুলে দিল মালদা জেলা প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায়,রাজ্য সরকারের নির্দেশে সোমবার কালিয়াচকের ব্লক প্রশাসন ভবনে গঙ্গা ভাঙ্গনে ঘরবাড়ি তলিয়ে যাওয়া অসহায় দুর্গতদের হাতে ১ কাঠা করে জমির পাট্টা দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য,কালিয়াচক-‌৩ ব্লকের বীরনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে বালু টোলা, চায়না বাজার, রামটোলা, এলাকাগুলোতে আগস্ট মাসের শেষের দিকে শুরু হয় গঙ্গার বিধ্বংসী ভাঙন। একের পর এক বাড়ি তলিয়ে যেতে থাকে। দুর্গতরা আশ্রয় নেন খোলা আকাশেরে নীচে। ভাঙন দুর্গত এলাকা পরিদর্শনে এসে প্রশাসন ও সরকার দলের প্রতিনিধিরা কথা দিয়ে গেছিলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকার। সেই মতো এদিন পাট্টা বিলির ব্যবস্থা করা হয়। কালিয়াচক-‌৩ ব্লক প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় সংশ্লিষ্ট ব্লক মিটিং হলে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই দিনের এই অনুষ্ঠানে মোট ৬৪ জনকে ভূমি পাট্টা বিলি করা হয়। উদ্বাস্তুদের নিজেদের জায়গায় থেকে প্রায় এক কিলোমিটারের মধ্যেই জমির ব্যবস্থা করা হয়। প্রত্যেককে ১ কাঠা করে জমি দেওয়া হয় এদিন। পাট্টা পেয়ে এদিন খুশি ক্ষতিগ্রস্তরা।রাজ্য সরকার তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদও জানিয়েছেন।

এই দিনের এই অনুষ্ঠানেই হাজির ছিলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌর চন্দ্র মন্ডল, জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র, রাজ্যসভার সাংসদ মৌসম নুর, বিডিও গৌতম দত্ত, বিধায়ক সাবিনা ইয়াসমিন সহ অন্যান্যরা।
সভাধিপতি গৌর চন্দ্র মন্ডল বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে এই দুর্গতদের পাট্টা বিলি করা হল এদিন। আরও পাট্টা দেওয়া হবে। তার তালিকা তৈরির কাজ চলছে। জেলা প্রশাসন ক্ষতিগ্রস্তদের পাশেই রয়েছে।’‌

জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র বলেন, ‘‌যে জায়গাগুলিতে ভাঙন চলছে, তা ফরাক্কা ব্যারেজের আওতাধীন। স্থায়ী ভাঙন প্রতিরোধের ব্যাপারে তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। আপাতত এদিন ভাঙন দুর্গতদের জমির মালিকানার কাগজপত্র বিলি করা হল।

শেয়ার করুন