গোলাপগঞ্জ ফাঁড়িতে ডিউটির ফাকেই তৈরি করছেন মাস্ক, চলছে বিতরণ।


দেবাশীষ পাল, মালদাঃ-মালদা জেলার কালিয়াচক থানার ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে অবস্থিত গোলাপগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশের এক অভিনব উদ্যোগ উঠে এলো।যখন সারা দেশে করোনা নামক মহামারীতে বাড়ি থেকে বেরোনোর আগে বিশেষজ্ঞরা মাক্স ব্যাবহারের জন্য বারবার আবেদন করছেন। এবং সরকারি তরফে মাক্স ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করেছেন, সেই সব কথা ভেবেই গোলাপগঞ্জ ফঁড়ির পুলিশঅফিসার রামচন্দ্র সাহা নিজেরাই মাক্স তৈরি করে সাধারণ মানুষের পাশে দারানো চেষ্টা করছেন।কর্মতর অবস্থার মধ্যে ডিউটি করার পরে নিজের সময় বের করে মাক্স তৈরি করছেন এক জন্য সিভিক ভলেন্টিয়ার লিয়াকত হোসেন। তিনি তার সিভিক ডিউটি করেও, ওভারটাইম কাজ করছেন মাক্স তৈরি করার কাজে। সে দিনরাত এক করেই কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন সাধারণ মানুষের কথা ভেবে। প্রায় ১৫০০০ হাজার মাক্স তৈরি করে ফেলেছে ডিউটি করার পরেও।আজ বৃহস্পতিবার সাধারণ মানুষের মধ্যে গোলাপগঞ্জ ফঁড়ির পুলিশের তরফে সাধারণ মানুষের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করা হয় এবং সকলকে সচেতন হবার জন্য পরামর্শ ও বার্তা গোলাপগঞ্জ ফাঁড়ির অফিসার রামচন্দ্র সাহা। তিনি বারবার সাধারণ মানুষকে মাক্স বিতরণ করার সময় বলেন আপনারা বাড়ির বাইরে বেরোনোর আগে মাক্স ব্যবহার করুন। নিজের সুরক্ষিত থাকুন, এবং অপরকে সুরক্ষিত রাখুন।




%d bloggers like this: