ঝড়ের দাপট কেড়ে নিয়েছে শেষ সম্বলটুকু, সরকারি সাহায্যের আশায় দিন কাটছে জয়ন্তী দেবী

মালদা: জেলার কালিয়াচক ৩ নম্বর ব্লকের গোলাপগঞ্জ এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বাস করতেন কমল মন্ডল, বর্তমানে তিনি মৃত। স্বামী মারা যাওয়ার পর জয়ন্তী মন্ডল তার ৪ সন্তানদের নিয়ে সেখানেই বাস করছেন। সম্বল বলতে ওই একখানা ঘর। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। গত দুদিনের ঝড়-বৃষ্টিতে সেটাও ভেঙে তছনছ হয়ে গিয়েছে। থাকার জায়গা বলতে আর কিছুই নেই। তবে মানবিক প্রতিবেশি বিজয় মন্ডল তাদের দুর্দিনে পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। তাদের নিজেদের বাড়ীতে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। গ্রামের মানুষদের সহায়তায় দিন কাটছে, মুখে উঠছে সামান্য খাবার। কিন্তু এভাবে কতদিন! সেই দুশ্চিন্তা গ্রাস করেছে জয়ন্তী দেবীকে। নিজের অসহায়তার কথা বলতে গিয়ে কেঁদেই ফেলেন তিনি। আজ স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘নতুন আলো’ র পক্ষ থেকে আব্দুল্লাহ বাবু ও যুবরাজ বাবু গিয়ে জয়ন্তী দেবীর সাথে দেখা করেন। সবরকম আশ্বাস দেন তারা। তিনিও সকলকে অনুরোধ করেন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে।

উল্লেখ্য, এই অসহায় দরিদ্র জয়ন্তী দেবী সরকার পক্ষের কাছে ঘরের জন্য আর্জি জানালেও বার বার খালি হাতে ফিরতে হয়েছে। আর আজকের পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়েও প্রাপ্তির সেই ভাঁড়ার শূন্যই রয়ে গিয়েছে। জানা যায় বিভিন্ন সক্ষম ব্যক্তিরাও সরকারি সাহায্যে ঘর পেয়েছেন, কিন্তু এই অসহায় মহিলার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়নি প্রশাসন।

আজ এই ঘটনার পর এলাকায় মেম্বারের সাথে কথা বললে তিনি জানান “একটা ত্রিপাল পাঠিয়ে দিবো”। এখন এটাই দেখার যে প্রশাসন কখন এই অসহায়, সম্বলহীন মহিলার পাশে এসে দাঁড়ায়। তবে আমরা আশা রাখছি, খুব শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান করবে প্রশাসন।

শেয়ার করুন