নেপোটিজম প্রশ্নে তোপ স্বস্তিকার : তোলপাড়

নিজস্ব সংবাদদাতা: বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই নেট দুনিয়া সোচ্চার নেপোটিজমে ৷ সোশ্যাল মিডিয়াতে সোচ্চার একের পর এক অভিনেতা অভিনেত্রী ৷ কদিন আগেই নেপোটিজম নিয়ে এক তোপ দেগেছিলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র ৷ তার সূত্র ধরেই সিনেমা জগতের অনেক অজানা কথা ভাসতে থাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ৷ ইউটিউব লাইভে এসে শ্রীলেখা ক্ষোভ উগরে দিলেন টলিউডের একেবারে শীর্ষে থাকা তারকা,পরিচালক এবং প্রযোজকদের প্রতি। সোজাসুজি আঙুল তুললেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের দিকে। প্রসেনজিৎ এবং ঋতুপর্নার প্রেমঘটিত কারনেই নাকি তিনি সিনেমাতে প্রথমে নায়িকার কাজ পাননি ৷ সেই সূত্র ধরেই পাল্টা তোপ টলিউডের আর এক অভিনেত্রী স্বস্তিকার ৷ তিনি তার ভেরিফায়েড ফেসবুক থেকে জবাব দিলেন ৷ পাঠকদের জন্য পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হলো ৷
“যখন কোন অভিনেত্রী কোন পরিচালকের সঙ্গে এক বা একের বেশি ছবি করে তখন বলা হয় সে শুয়ে বা প্রেম করে কাজটা পেয়েছে। বেশ। তা আমি এক পরিচালকের সঙ্গে তার জীবনের ১৭টা ছবির মধ্যে আড়াইখানা ছবি করেছি (২টি মুখ্য চরিত্র, ১টি অতিথি শিল্পী)। কিন্তু যেহেতু এই পরিচালকের সঙ্গে সৌমিক হালদার ১১টা, অনুপম রায় ৯টা, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ৭টা, যীশু সেনগুপ্ত ৭টা, অনির্বাণ ভট্টাচার্য ৬টা এবং পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় ৬টা কাজ করেছেন, তারা নিশ্চয় আরো বেশি করে শুয়ে আর প্রেম করে কাজগুলো পেয়েছেন? এনারা তাহলে সবাই উভকামী ও সুযোগসন্ধানী? যুক্তি তো সবার ক্ষেত্রেই এক হওয়া উচিৎ, তাই না? নাকি নিজের খামতি ঢাকতে স্লাটশেমিং শুধু আমাদের মত ‘কুযোগ্য’ অভিনেত্রীদের করা হবে যারা একেবারেই অভিনয়টা পারেনা?”

শেয়ার করুন