পথ দূর্ঘটনায় কর্মচারীর মৃত্যু , মহকুমা শাসকের কার্য্যালয়ের সামনে মৃতদেহ আটকে বিক্ষোভ পরিবারের সদস্যদের

নিজস্ব সংবাদদাতা,হাওড়াঃ সদর হাওড়ার সাঁকরাইল থানার বড়পীরতলা গ্রামের বাসিন্দা সুসেনজিৎ নস্কর (৩৪) পেশায় উলুবেড়িয়া মহকুমা শাসকের কার্য্যালয়ে ডাটা এন্ট্রি অপারেটর কর্তব্যরত। গতকাল সকালে নিজের বাড়ি থেকে সহকর্মী সুখরঞ্জন সরকারকে নিয়ে বাইকে চেপে অফিসের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পুলিশ সূত্রে দাবি উলুবেড়িয়ার রাজাপুর থানার বেলতলায় পিছন দিক থেকে আসা ট্রাকের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় সুসেনজিৎ নস্কর নামে ঐ কর্মচারীর। আহত অবস্থায় স্থানীয়দের চেষ্টায় সুখরঞ্জন সরকার ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উলুবেড়িয়া মহকুমা হসপিটালে নিয়ে যায়।
রাজাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় উলুবেড়িয়া মহকুমা হসপিটালে। ময়নাতদন্তের পর পুলিশের তরফে মৃতদেহ হস্তান্তর হলে দেহ নিয়ে মহকুমা শাসকের কার্য্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ দেখায় পরিবারের সদস্যরা। সুসেনজিৎ নস্করের স্ত্রীর দাবি -” লকডাউন চলায় সমস্ত গাড়ি বন্ধ,তাই বাইক নিয়ে রোজ যাতায়াত করত। তার উপর অফিসে নিদিষ্ট সময়ে আসতে হত। একটু দেরি হলেই লাল কালি পরার হুমকি দেওয়া হত”। এই প্রসঙ্গে বামপন্থী কর্মচারী সংগঠনের নেতৃত্বের দাবি -“আগের মহকুমা শাসক তুষার সিংলা এই লকডাউনে দিনে চাপ দিয়ে যথা সময়ে আসতে বাধ্য করতে। অবিলম্বে পরিবারের একজনকে চাকরি সরকারিভাবে দশ লক্ষ টাকা দিতে হবে”। প্রসঙ্গক্রমে নবনিযুক্ত মহকুমা শাসক অরন্য বন্দোপাধ্যায় বলেন-” আমি সবে মাত্র দায়িত্বভার গ্রহন করেছি। অভিযোগ গুলো সম্পর্কে আমাকে কেউ অবগত করে নি। আমি সকল কর্মচারীদের সাথে বৈঠক করে সমস্যার সমাধান করব।

শেয়ার করুন