পশু চিকিৎসালয় থেকে মানুষের হাসপাতালে অসুস্থ গবাদিপশু, মিললো না চিকিৎসা

মালদাঃ-সর্পাঘাত গরু কে সঙ্গে নিয়ে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর-২ নম্বর ব্লকের পশু চিকিৎসালয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন সুলতান নগর গ্রাম পঞ্চায়েতের এলাকার মনোহরপুর টিকাচার গ্রামের বাসিন্দা ঠগাই সিং(৬০)।
কিন্তু সাপে কাটা গরু চিকিৎসা না পেয়ে বিমর্ষ হয়ে বাড়ি ফিরতে হলো ঠগাই বাবুকে। পশু চিকিৎসালয় সূত্রে জানাগেছে, সাপে কাটা গরুর কোন চিকিৎসার পরিকাঠামো নেই ওই কেন্দ্রে।
এবিষয়ে ঠকাই সিং জানান, সোমবার সকালে গোয়াল ঘরে গরুকে একটি গোখরো সাপ কামড় দেয়। তিনি দেরি না করে তার গরুকে স্থানীয় পশু চিকিৎসালয় নিয়ে আসেন।কিন্তু সেখানে অনেকক্ষণ অপেক্ষা করার পর জানানো চিকিৎসকের তরফে জানানো হয় সাপে কাটা গরু এখানে চিকিৎসা হবে না!

তখন তিনি দিশেহারা হয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু সেখানকার ডাক্তারবাবুরা তাকে বোঝান এটা মানুষের চিকিৎসালয় এখানে গরুর চিকিৎসা হয় না। তখন তিনি বাধ্য হয়ে সাপে কাটা গরু কে নিয়ে নিজ গৃহের উদ্দেশ‍্যে রওনা হন।

প্রত্যক্ষদর্শী ছোটন সাহার বক্তব‍্য, আমরা অনেকক্ষণ থেকে দেখলাম ওই বয়স্ক ভদ্রলোক মানুষের চিকিৎসা কেন্দ্রে তার সাপে কাটা গরু কে নিয়ে মানুষের হাসপাতালে নিয়ে এসেছিলেন।

দীর্ঘক্ষন ধরেই তিনি বসে ছিলেন তার গরুর চিকিৎসা হবে বলে! কিন্তু ডাক্তারবাবুরা এসে জানান এটা মানুষের চিকিৎসালয় এখানে পশুর চিকিৎসা হয় না।

স্থানীয় বাসিন্দা সাবেদ আলী জানান, লোকটি অনেকক্ষণ ধরেই পশু চিকিৎসালয় বসেছিলেন, কিন্তু তিনি সেখানে চিকিৎসা না পেয়ে মানুষের হাসপাতালে চলে আসেন। কিন্তু স্বাভাবিক ভাবে মানুষের হাসপাতালে পশুর চিকিৎসা হয়নি। চিকিৎসা না পেয়ে বৃদ্ধ লোকটি সাপে কাটা গরু কে নিয়ে বাড়ি ফিরে যান।

তিনি আরো জানান, এটা আমরা প্রথমবার দেখলাম পশু হাসপাতালে পশুর চিকিৎসা না হওয়ায় মানুষের হাসপাতালে দ্বারস্থ হতে হল।
স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ, পশু চিকিৎসালয় উন্নত চিকিৎসার পরিকাঠামো নেই, ডাক্তারবাবু ও অন্যান্য কর্মীরা সময় মতো আসেন না! এবং বাইরে থেকে ওষুধ ক্রয় করতে হয় বলে অভিযোগ।

এবিষয়ে বিএলডিও ২ প্রবীর চন্দ্র প্রধান জানিয়েছেন, সর্পাঘাত পশু চিকিৎসা করার মত পর্যাপ্ত ওষুধ আমাদের কাছে নেই। তাই এই গরুকে চিকিৎসা করানো সম্ভব হয়নি। এছাড়াও অন্যান্য অভিযোগের উত্তর দিতে তিনি রাজি হননি বলে খবর।

হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের বিডিও প্রীতম সাহা জানিয়েছেন, আমরা বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। কোন সমস্যা থাকলে তার সমস্যার সমাধান করা হবে।

পশু চিকিৎসালয়ে সর্পঘাত গবাদি পশুর চিকিৎসার জন‍্য অ‍্যান্টিভিনাম ডি মজুত নেই। সমস‍্যার কথাটি জেলাপরিষদের জানাব বলে জানিয়েছেন মালদা জেলাপরিষদের শিশু-নারী কল‍্যান ত্রান কর্মাধ‍্যক্ষ মর্জিনা খাতুন।

শেয়ার করুন