প্রাকৃতিক ফ্রিজ তৈরি করে পুরস্কৃত ছাত্রী

নিশীথ ভূষণ মাহাতো , পুরুলিয়া: রুখামাটির দেশ পুরুলিয়া কে পিছিয়ে পড়া জেলা বলা হয়ে থাকে । একসময় এটা বলার পেছনে যুক্তি ছিল । শিক্ষা, অর্থনীতি , খেলাধুলা , বিজ্ঞান সর্ব্ব ক্ষেত্রেই এই জেলাটি পিছিয়ে ছিল । কিন্তু সাম্প্রতিক কয়েক বছর ধরে এই জেলার ছেলে মেয়েরা উপরোক্ত সব বিষয়েই মেধার ছাপ রেখে চলেছেন ।

এই জেলা থেকেই অভিনন্দা ঘোষ নামে জনৈক ছাত্রী এবছর নাসাতে প্রশিক্ষণের সুযোগ পেয়ে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছেন । আন্তর্জাতিক আসরে বিভিন্ন দেশের প্রায় আঠারো লক্ষ্য ছাত্র ছাত্রীদের হারিয়ে এই সুযোগ পেয়েছেন ।

অতি সম্প্রতি পুরুলিয়া জেলা বিজ্ঞান কেন্দ্রের উদ্যোগে পার হয়ে গেল ‘বিজ্ঞান মেলা ২০২০’ চলতি ফেব্রুয়ারি মাসের ৪ – ৬ ই তারিখ অনুষ্ঠিত এই মেলায় জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বহু ছাত্র ছাত্রী বিজ্ঞানে তাঁদের উদ্ভাবনী প্রদর্শন করেছিল । তার মধ্যে থেকে উল্লেখ যোগ্য মডেল গুলোকে পুরষ্কার প্রদান করা হয় ।

এখানে দলগত ভাবে সৈনিক ইস্কুল, সেন্ট জেভিয়ার্স রামকৃষ্ণ মিশন এবং স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো পুরষ্কার লাভ করে । কিন্তু একক ভাবে একটি সাধারণ অনামি ইস্কুলের একজন সাধারণ ছাত্রী জয়শ্রী মাহাতো একটা অভূতপূর্ব মডেল আবিষ্কার করে বিশেষ ভাবে পুরস্কৃত হয় । মডেল টির নাম ‘ন্যাচারাল ফ্রিজ ‘ পরিবেশ দূষণ না ঘটিয়ে কিভাবে বিভিন্ন কাঁচা শাক সবজি টাটকা রাখা যায় সেটাই এই মডেলের বৈশিষ্ট্য ।

মডেলটি উচ্চ প্রশংসা লাভ করেছে । এটিই একক ভাবে প্রথম স্থান দখল করেছে । মডেলের আবিষ্কর্তা জয়শ্রী মাহাতো শহরের নেতাজি বিদ্যাপীঠের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী । বাড়ি পুরুলিয়া মফঃস্বল থানার চাকিরবন গ্রামে । সে নগদ অর্থমূল্য এবং শংসাপত্র লাভ করেছে জেলা বিজ্ঞান কেন্দ্রের পক্ষ থেকে ।

পুরুলিয়া জেলা বিজ্ঞান কেন্দ্রের প্রধান আধিকারিক শ্রী ধ্রুব জ্যোতি চট্টোপাধ্যায় বলেন ” বিজ্ঞান মেলার অন্যতম মূল উদ্দেশ্য হল পুরুলিয়া জেলার ছেলে মেয়েদের বিজ্ঞানে আগ্রহী করে তোলা এবং এই উদ্দেশ্য সফল হচ্ছে । আমাদের জেলার ছাত্র ছাত্রীদের বিজ্ঞানে আগ্রহ ক্রমশ বাড়ছে । জয়শ্রী মাহাতো তার একটা উদাহরণ । একটা প্রত্যন্ত গ্রামের সাধারণ পরিবারের মেয়ে এবছর অন্যতম সেরা মডেল বানিয়েছে । আশাকরি এভাবেই প্রতিভা উঠে আসবে । ”

শেয়ার করুন