ফের পিংলায় ও ডেবরাতে ভাঙন বিজেপি ও কংগ্রেসের


নিজস্ব সংবাদদাতা,পশ্চিম মেদিনীপুর:বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এর দলের মধ্যে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করার ফলে খোদ নিজের জেলায় সংগঠনের ভাঙ্গন দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিন অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলার কোনো না কোনো প্রান্তে প্রতিদিন বিজেপি ছেড়ে নীচুতলার নেতৃত্ববৃন্দ ও কর্মীদের মধ্যে তৃনমূলে যোগদান এর জোয়ার এসেছে। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার পিংলা ও ডেবরাতে ফের ভাঙন বিজেপি ও কংগ্রেসে। মঙ্গলবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মাদপুরে পিংলা বিধানসভার সমস্ত ব্লক সভাপতি, অঞ্চল সভাপতি,কোর কমিটির সদস্যদের নিয়ে একটি অভ্যান্তরীন আলোচনা করেছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা তৃনমুল কংগ্রেসের সভাপতি অজিত মাইতি। এদিন অজিত মাইতি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পিংলা বিধানসভার বিধায়ক ও রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র, রাজ্য সভার সাংসদ মানস রঞ্জন ভুঁইয়া সহ অনান্যরা। এদিনই মাদপুরের একটি বেসরকারী আবাসে তৃনমুলে যোগদান করেন পিংলা ব্লক বিজেপির কোর কমিটির সদস্য প্রশান্ত চক্রবর্তী,২ নং অঞ্চল কংগ্রেসের সভাপতি সামু পাল, ৪ নং অঞ্চল কংগ্রেসের সভাপতি তরুন জানা, ২ নং জামনা অঞ্চলের দক্ষিন বুথের কংগ্রেস সভাপতি শান্তুনু মাইতি সহ বেশ কয়েকজন সমর্থক। তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন জেলা সভাপতি অজিত মাইতি ও মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। পাশাপাশি ডেবরা ব্লকে তিন নম্বর সত্যপুর অঞ্চলে ও দু’নম্বর ভরতপুর অঞ্চলের বিজেপির ২০টি পরিবার তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা তুলে নেয় পঞ্চায়েত সমিতি র কর্মাধ্যক্ষ বিবেক মুখার্জি নেতৃত্বে। বিজেপিতে যোগদানের বিষয়ে তাদের জিজ্ঞেস করলে তারা জানায় যে বিজেপির জেলা বা রাজ্য নেতৃত্ব আমাদের মতো নীচুতলার কর্মীদের কোন ও গুরুত্ব দিচ্ছেনা। দলের যারা পদাধিকার তারা এক একজন দূর্নীতিগ্ৰস্ত। দলের উপরের অংশ সব জেনেশুনে ও অন্ধ ধৃতরাষ্ট্র হয়ে আছে। তাই কোন কিছুনা পাওয়ার জন্য তাদের এই সিদ্ধান্ত।

শেয়ার করুন