ভারত চিন সংঘর্ষে লাদাখে শহীদ বাংলার ছেলে।

লাদাখ :বেশ কিছু দিন থেকে ভারত চিন সীমান্তে যুদ্ধ পরিস্থিতি অব্যাহত। ইতিমধ্যেই একজন সেনা অফিসার সহ মোট ২০ জন সৈনিক প্রাণ হারিয়েছেন। ভারতের চিন, লাদাখ সীমান্তে গোলাগুলিতে এবার প্রাণ হারালেন বাংলার এক সৈনিকও। সূত্রের খবর, রাজেশ ওরাং (ওটাং) নামের ওই সৈনিকের বাড়ি এই রাজ্যের বীরভূম জেলার, মহম্মদবাজার থানার অন্তর্গত স্যাওড়াকুড়িতে। ২০১৫ সালে তিনি সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন। এর আগে তিনি বিহার রেজিমেন্টের ১৪৮ নম্বর ব্যাটেলিয়ানে কর্তব্যরত ছিলেন। এদিন এই সংঘর্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। কিন্তু চিনা সেনার গুলিতে প্রাণ হারান এই বাঙালি সৈনিক!

প্রসঙ্গত, সোমবার রাতের সংঘর্ষ! তার রেশ থামতে না থামতেই ফের ইন্দো-চিন সেনা সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয় লাদাখ উপত্যকা। পূর্ব গালওয়ান উপত্যকায় ফের ভারতীয় সেনা এবং চিনা সেনার মধ্যে মারাত্মক সংঘর্ষ হয়! যারফলে এখনও পর্যন্ত শহীদ কমপক্ষে ২০ ভারতীয় সেনা জওয়ান! এই ঘটনায়, মৃত্যু হয়েছে ৪৩ চিনা সেনারও! যার ফলে, একপ্রকার যুদ্ধ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে ইন্দো চিন সীমান্তে! ভারত এবং চিনের মধ্যে এই ভয়ানক পরিস্থিতি ১৯৬২ ও ১৯৬৭ এর পর প্রথম বলেই মনে করছেন, আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা। এই ঘটনার পরেই ফের তোলপাড় শুরু হয়েছে দেশজুড়ে! আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ও চর্চা শুরু হয়েছে। চিন সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে! অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ৪৫ বছর পরের এই গুলি চালনার ঘটনা, আবার যুদ্ধের দিকেই কি এগিয়ে দিচ্ছে? এই প্রশ্নই উঠছে। এদিকে ইতিমধ্যেই সরকারের তরফে উচ্চপদস্ত আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক হয়। আবার একপ্রস্ত আলোচনা শুরু হয়েছে। ভারতীয় সেনার তরফে বিবৃতি জারি করে, কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে চিনকে। নয়াদিল্লিতে শুরু হয়েছে তৎপরতা।

শেয়ার করুন