বামকর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে উলুবেড়িয়ায় পথ অবরোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা,হাওড়াঃ
গত সপ্তাহে মঙ্গলবার উম্পুন বিধ্বস্ত হাওড়ার শ্যামপুর পরিদর্শনে আসেন সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী ও বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান,অসিত মিত্র সহ একাধিক নেতৃত্ব। এলাকা পরিদর্শনে করার পাশাপাশি ক্ষোভ প্রকাশ করে কলকাতা ফেরত যান সুজন বাবুরা। পরে রাতের অন্ধকারে অর্তকিতে হামলা চালিয়ে মারধর করার পাশাপাশি ভাঙচুর করা হয় বাড়িঘর। অভিযোগের তীর স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস সর্মথক তাজউদ্দীন মল্লিক, সুরজ মল্লিক,সাহিল মল্লিক,সইদুল মল্লিক,সেখ মোজেস,সেখ সাইদুল,সেখ সাইজাত, সাদ্দাম মল্লিক সহ বেশ কয়েকজনের নামে অভিযোগ দায়ের হলেও এখন বৃহস্পতিবার সকাল পযর্ন্ত গ্রেপ্তার না হওয়ায় বিকেলে গ্রামীণ হাওড়ার উলুবেড়িয়া থানার কালিনগর ফারুক সাহেবের মোড় এলাকা পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় সিপিআইএম নেতৃত্ব। ফলে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে তীব্র যানযট সৃষ্টি হয় উলুবেড়িয়া – শ্যামপুর রাজ্য সড়ক। এই কর্মসূচীর নেতৃত্ব দেন উলুবেড়িয়া পৌরসভার প্রাক্তন বিরোধী দলনেতা সাবিরুদ্দিন মোল্লা,অর্পনা পুরকাইত ও গৌতম পুরকাইত সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। এই প্রসঙ্গে সাবিরুদ্দিন মোল্লার বক্তব্য-” বামফ্রন্টকে শক্তিবৃদ্ধিতে তৃণমূল কংগ্রেস ভয় পেয়েছে। দিনের পর দিন একের পর এক দুর্নীতি স্বজনপোষনে একাধিক অভিযোগ,আর থানা গুলোকে তৃণমূল কংগ্রেসের পার্টী অফিস গড়ে তুলেছে মুখ্যমন্ত্রীর ভাইয়েরা। পুলিশ দলদাসে পরিনত হয়েছে। নাহলে দুটি অভিযোগ জমা পরলেও একটাতেও ব্যবস্থা গ্রহনের সাহস পায় নি গ্রেপ্তারের। অবিলম্বে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন না হলে গোটা উলুবেড়িয়াকে অচল করবে বামফ্রন্ট,তার সমস্ত দায় নিতে হবে পুলিশকে “। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্তের চালিয়ে গ্রেপ্তারির আশ্বাস দিলে অবরোধ ওঠে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।




%d bloggers like this: