মালদহে এলাকায় লকডাউন সফল করতে পুলিশের কড়া পদক্ষেপ


নিজস্ব সংবাদদাতা, মালদহ : মালদা জেলার ৩ টি থানা এলাকায় লকডাউন সফল করতে কড়া পদক্ষেপ পুলিশের। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই মালদা শহরের একাধিক জায়গায় অভিযানে চালাল ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। শহরের ব্যস্ততম এলাকা রবীন্দ্র এভিনিউ, রথবাড়ি, পোস্ট অফিস মোড় সহ একাধিক এলাকায় অভিযান চালায় ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। নির্দিষ্ট সময়ের পরও দোকানপাট খোলা থাকায় পুলিশি অভিযানে সেই সকল দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া দেয়। অন্যদিকে লক ডাউন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে শহরের একাধিক জায়গায় পুলিশি ব্যারিকেড করা হয়। নিয়ম না মেনে রাস্তায় চলাচল করায় একাধিক টোটো,অটো এবং মোটর বাইক আটকে দেওয়া হয়।
বুধবার থেকে সাত দিনের জন্য লকডাউন সফল করতে শহরের একাধিক জায়গায় মাইকিং শুরু করা হয় ইংরেজবাজার থানা পুলিশের পক্ষ থেকে।
ইংরেজবাজার থানার পাশাপাশি পুরাতন মালদা এলাকাতেও মালদা থানার পক্ষ থেকে অভিযান চালানো হয়। শহরের চৌরঙ্গী মোড় সহ একাধিক এলাকায় অভিযান চালায় মালদা থানার পুলিশ। পুরাতন মালদা রাজীব গান্ধী মার্কেট, মঙ্গলবাড়ী নিউ মার্কেট সহ একাধিক মার্কেট নির্দিষ্ট সময়ের পরও দোকানপাট খোলা থাকায় মালদা থানার পুলিশ গিয়ে সেই সকল দোকানপাট বন্ধ করে দেয়। তার পাশাপাশি কড়া হুঁশিয়ারি দেওয়া হয় সেই সকল ব্যবসায়ীদের। অন্যদিকে কালিয়াচক থানার জালালপুর সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় অভিযান চালায় পুলিশ।
উল্লেখ্য করোনা সংক্রমণ রুখতে মালদা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে
বুধবার থেকে সাত দিনের জন্য জেলার ইংরেজ বাজার থানা, মালদা থানা এবং কালিয়াচক থানা এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সবজির দোকান মাছ মাংসের দোকান সকাল এগারোটা পর্যন্ত খোলার নির্দেশ দেওয়া হয়। তার পাশাপাশি ফুটপাতের দোকানগুলো বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে চায়ের দোকান পানের দোকান। এক জায়গায় জমায়েত করা যাবে না, ঘরের বাইরে বেড়ালে মাস্ক ব্যবহার করার নির্দেশ সহ একাধিক নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। লক ডাউনের প্রথম দিনই সকাল থেকে শহরের ফুটপাতের দোকান, কাপড়ের দোকান, শপিংমল সহ একাধিক দোকানপাট বন্ধ ছিল। রাস্তায় যে সকল যানবাহন নেমেছিল তাদের বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছিল ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।
সারাদেশের সঙ্গে মালদা জেলাতেও বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসন সিদ্ধান্ত নেই লকডাউনের। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে লকডাউন সফল করতে কড়া পদক্ষেপ নেয় পুলিশ প্রশাসন।

শেয়ার করুন