যৌতুকের বাকী টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা ! পুলিশের জালে ধৃত আসামী


নিজস্ব সংবাদদাতা, পূর্ব মেদিনীপুর:যৌতুকের বাকী টাকা না পেয়ে নিজের স্ত্রীকে খুনের অভিযোগ যুবকের বিরুদ্ধে ৷ গ্রেফতার স্বামী ও শশুর ৷ পলাতক রয়েছে হত্যায় সহযোগী আরও দুইজন ৷ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দীঘা থানার পদিমা গ্রামের ঘটনা ৷ ঘটনায় চাঞ্চল্য গোটা এলাকায় ৷
স্থানীয়রা এবং ভিকটিমের পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, ওই গ্রামের নারায়ন চন্দ্র জানার মেয়ে চন্দনা মালির সঙ্গে ৭ বছর আগে রামনগর থানার সাতবাটিয়া গ্রামের সত্যরঞ্জন মালির বড় ছেলে মিলন মালির বিয়ে হয় ৷ এ সময় প্রায় ৩ লক্ষ টাকা জামাইকে পণ হিসাবে দেন তিনি ৷
কিন্তু বিয়ের পর মেয়ের শ্বশুর বাড়ির লোকেরা আরো লক্ষাধিক টাকা দাবি করে । এরপর গত ২০ তারিখে চন্দনা মালিকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় ৷ নারায়ন বাবু যৌতুকের পর্যাপ্ত টাকা না দিতে পারায় তার মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে বলে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে ৷
রামনগর থানার পুলিশ মৃত চন্দনার স্বামী মিলন মালি ও শশুর সত্যরঞ্জন মালিকে গ্রেফতার করে কাঁথি মহকুমা আদালতে প্রেরন করে ৷ মৃতের শাশুড়ি ও দেওর পলাতক ৷ তাদের ধরতে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

শেয়ার করুন