লকডাউনে শিশুদের মানসিক অবসাদ মুক্ত করতে অভিনব উদ্যোগ


নিজস্ব সংবাদদাতা, পূর্ব মেদিনীপুর:মহামারী করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় গত ২২ মার্চ থেকে দীর্ঘ চার মাসেরও বেশী হতে চলল বিশ্বব‍্যাপী বিপর্যয়ের সাথে ছোটরাও একভাবে ঘরবন্দী। অতিমারির ছোবল থেকে বাঁচাতে অভিভাবকদের কঠোর নজর দারির মধ‍্যে চার দেওয়ালের ঘেরা টোপেই কাটছে তাদের দিনরাত।
বাড়ির বড়োরা বিভিন্ন প্রয়োজনে/অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের হলেও কচিকাচাদের সে ছাড়পত্র মেলেনি।
তাদের সেই নিত‍্য স্কুলে যাওয়া , বন্ধু বান্ধব, দৌড়ঝাঁপ, খেলার মাঠ, নাচের স্কুল, গানের স্কুল, ড্রইং মাস্টার, আম জাম কুড়ানো সবকিছু শিকেয় উঠেছে। কিছু ক্ষেত্রে অনেক শিশু/কিশোর এই দীর্ঘ সময় ঘর বন্দীদশায় মানসিক অবসাদের শিকার হয়ে পড়ছে। করোনা আবহে এইরূপ দুঃস্থ পরিবারের শিশু কিশোরদের পাশে দাঁড়ালো রাধামনি বিবেকানন্দ শিশু কালচারাল অ্যাসোসিয়েশন ও কোলাঘাটের স্বেচ্ছা সেবী সংস্থা সংকেত ক্লাব। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাটের চারটি গ্রামের দুঃস্থ শিশুদের পাড়ায় পাড়ায় ঘরে ঘরে পৌঁছে গেল চর্লি চ‍্যাপিলিয়ন, সান্তাক্রুজ সহ ও ভাইরাস মডেল ও ভূত-প্রেতের দল। তাদের নাচ-গান হৈ হুল্লোড় আর অঙ্গভঙ্গি দেখে ছোটরা হেসে লুটোপুটি। এরপর প্রত‍্যেকটি ছোটদের হাতে হাতে উপহার স্বরুপ তুলে দেওয়া,- চকলেট, কেক, ফ্রুটি, সুজি, ম‍্যাগি, সিমুই, চাওমিন, বিস্কুট ইত‍্যাদি ড্রাইফুড। কোলাগ্রামের তৃতীয় শ্রেণীর অয়ন খাঁড়া থেকে বাড়িশা হরিজন বস্তির চার ক্লাসের পড়ূয়া সানু মাদরাজি থালা ভর্তি উপহার পেয়েতো বেজায় খুশি।
আয়োজক সংস্থার সভাপতি অভিজিত সামন্ত জানান, দীর্ঘ লকডাউনে একভাবে ঘরবন্দী শিশুদের আনন্দ দিতে, এক ঘেয়েমি দূর করতেই এই আয়োজন। আজ থেকে শুরু হল, চারটি গ্রামের ১০০টি দুঃস্থ পরিবারের শিশুদের হতে এই উপহার তুলে দেওয়া হবে আগামী তিনদিনে।

শেয়ার করুন