সন্ধ্যের পরেই শুরু হাতির তান্ডব, আতঙ্কিত গ্রামবাসী

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়াঃ রাত হলেই একরাশ আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে বাঁকুড়ার বেলিয়াতোড় রেঞ্জ এলাকার জঙ্গল লাগোয়া চন্দনপুর, পিড়রাবনি, কাওলিয়া, বৃন্দাবনপুর, বড়কুড়া, রাওতোড়া সহ বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষকে। সন্ধ্যে নামলেই বেশ কয়েকটি শাবক সহ ২৪ টি হাতির একটি দল দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এলাকা জুড়ে। ইতিমধ্যে চাষাবাদের ব্যপক ক্ষতির পাশাপাশি গ্রামে থাকা ধানের আড়ৎ, বাড়ি ঘর, দোকান পাট ঐ হাতির দলটির আক্রমণের হাত থেকে রেহাই পায়নি। সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গলে খাবার কমে যাওয়ার কারণেই বার বার গজরাজের দল গ্রামে ঢুকে তাণ্ডবলীলা চালাচ্ছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসীরা মনে করছেন।

বৃহস্পতিবার ঐ এলাকায় গিয়ে দেখা গেল, বেশ কয়েকটি বাড়ি হাতির আক্রমণে ভেঙ্গে পড়েছে। দোকান, ধানের আড়তের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে মজুত থাকা খাদ্যশস্য খেয়ে ফেলেছে। এই অবস্থায় গ্রামবাসীরা হাতির দলটিকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দাবী জানাচ্ছেন। গ্রামবাসী দোলগোবিন্দ আকুড়ি, আদিত্য কুণ্ডুরা বলেন, হাতির ভয়ে রাতে ঘুমোতে পারছিনা। সার সহ অন্যান্য খরচ করে চাষ করছি অথচ সেইসব উৎপাদিত কৃষিজদ্রব্য বাড়িতে আনার সুযোগ নেই। তার আগেই হাতিতে সব নষ্ট করে দিচ্ছে। আর এক গ্রামবাসী গুরুপদ আকুড়ি বলেন, রাজমিস্ত্রীর জোগাড়ের কাজ করে সংসার চালাই। খবর পেয়ে গ্রামে এসে দেখি আমার বাড়ি হাতির দল ভেঙ্গে দিয়েছে। সংসার চালাতেই যেখানে হিমশিম খাচ্ছি, সেখানে এই বাড়ি কি করে সারাবো বলে তিনি প্রশ্ন তোলেন। এই অবস্থায় দ্রুততার সঙ্গে ক্ষতিপূরণ ও হাতির দলটিকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দাবী তারা জানান।

স্থানীয় বনাধিকারিক দেবদাস রায় এবিষয়ে বলেন, হাতির দলটিকে কোনমতেই সরানো যাচ্ছেনা। তবে সেই চেষ্টা চলছে। একই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্তরা প্রত্যেকেই সরকারী নিয়মানুযায়ী ক্ষতিপূরণ পাবেন বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন