সাজাপ্রাপ্ত বন্দির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, অভিযোগের তির প্রশাসনের দিকে!

নিজস্ব সংবাদদাতা,পশ্চিম মেদিনীপুর:-মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে সাজাপ্রাপ্ত বন্দির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য। খুনের অভিযোগ পরিবারের। মঙ্গলবার ভোরে মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার এর ৭এ ওয়ার্ডের মধ্যে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় মুক্তার বায়েন নামে সাজাপ্রাপ্ত বন্দির। জানা গিয়েছে মৃতের বাড়ি গরবেতা থানার উপরজবা গ্রামে। মৃতের স্ত্রীর অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে উপরে নানাভাবে শারীরিক অত্যাচার চালানো হতো জেলের ভেতরে। এমনকি বারবার খুনের হুমকি ও দেওয়া হতো বলে দাবি মৃতের স্ত্রীর। মঙ্গলবার দেহ উদ্ধারের পর মৃত স্ত্রীর অভিযোগ, খুন করে জেলের ভেতরে ঝুলিয়ে দেওয়া হয় তার স্বামীকে।
২০১১ সাল থেকে ধর্ষনের অভিযোগ ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত এই বন্দীর মাস কয়েক বাদেই মুক্তির কথা ছিলো। লকডাউন সময়কালে প্যারোলে যাওয়ার কথা থাকলেও করোনা সতর্কতার জেরে তাকে ছাড়া হয়নি বলে জানা গিয়েছে পরিবার সুত্রে। এদিন ঘটনার পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে মৃতের পরিজনেরা। জেলের ভিতর কিভাবে এই ঘটনা ঘটলো তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মৃতের পরিজনেরা।
জেল সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার পর জেলের ভেতরে বিক্ষোভ শুরু করে বন্দীদের একাংশ। দেহ উদ্ধার করতে বিস্তর বেগ পেতে হয় মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার এর কারারক্ষীদের। এমনকি পরিস্থিতি সামলাতে সংশোধনাগারে ছুটে আসতে হয় ডিএসটি পদমর্যাদার এক অফিসার সহ মেদিনীপুর কোতোয়ালী থানার পুলিশকে। পরে দেহটি উদ্ধার করে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।

শেয়ার করুন