সারাদেশের পাশাপাশি ঘন্টাধবনিতে মেতে উঠল শহর শিলিগুড়ির খুদেরাও

ভাস্কর চক্রবর্তী, শিলিগুড়িঃ কাঁসি, করতাল, শঙ্খ ভিন্ন শব্দের একত্রিত তানে আজ ভাসল শিলিগুড়ি। করোনার সংক্রমণ রুখতে নিজের জীবনের ঝুঁকি রেখেও দিনরাত এক করছেন ভারত সহ পুরো বিশ্বের ডাক্তারের।গত ১৯ শে মার্চ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২২ শে মার্চ করোনা সংক্রমণের চেন ভাঙতে সম্পূর্ণ দেশের জনতা কারফিউ পালনের পাশাপাশি কর্মরত ডাক্তারদের উদ্দেশ্যে সম্মান জ্ঞাপনে বিকেল ৫ টার থেকে ৫ মিনিটের জন্য যেকোন প্রকার বাদ্য যন্ত্র বাজানোর আবেদন করেন।আজ তার সেই আবেদন মান্য করেই সমগ্র দেশের পাশাপাশি শিলিগুড়িতেও বাজানো হয় বিভিন্ন বাদ্য। যাদের কাছে কোনো নামাঙ্কিত বাদ্য ছিল না তারা হাতা,খুন্তি, হাঁড়ি, কড়াই কেই বাদ্য বানিয়ে মেতে উঠেন দিনটি পালন করতে। প্রায় প্রত্যেক শিলিগুড়িবাসী বাড়ির বারান্দা, ছাদ এমনকি রাস্তায় নেমে তাদের বাদ্য গুলো বাজান। বলতে গেলে ১ দিনের জন্য হলেও করোনা রুখতে এবং লড়াকু ডাক্তারদের সম্মান জানাতে জাতি, ধর্ম,বর্ন,রাজনীতির বেড়াজাল ভেঙ্গে আজ যেন গোটা শহর সহ সম্পূর্ন দেশ একই সূত্রে বেঁধে যায়।

বাড়ির পুরুষ, মহিলা ও বয়স্করা ছাড়াও কচি-কাঁচাদের কাঁসর-ঘন্টা বাজানোর দৃশ্যটাও ছিল চোখে পড়ার মত। তারা হয়তো জানেনা কি জন্য বা কেন সবাই মেতেছে থালা-বাসন, কাঁসর-ঘন্টা বাজাতে, তা সত্ত্বেও নিষ্পাপ ও অবুঝ মন সকলের সাথে তালে তাল মিলিয়ে ঘন্টাধ্বনি করে জরুরী কালীন কর্মীদের সম্মান জানাতে সদর্থক ভূমিকা পালন করলো।




%d bloggers like this: