হাওড়াতে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর প্রতিকৃতি ভাঙ্গলো প্রোমোটার : ৩ জনের জেল


নিজস্ব সংবাদদাতা,হাওড়াঃ সদর হাওড়া বিগার্ডেন থানার অন্তর্গত বাকসাড়া মোড় এলাকায় ভারতরত্ন সম্মানে ভূষিত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িত এক স্থানীয় প্রোমোটার। ঐ প্রোমোটার এলাকায় অত্যন্ত প্রভাবশালী তৃণমূল কংগ্রেস নেতা হওয়ায় স্থানীয় কংগ্রেস কর্মীরা ভাঙচুরে বাধা দিতে গেলে হুমকি দেখিয়ে প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করে বলে অভিযোগ জেলা কংগ্রেস নেতৃত্বের। তীব্র বাদানুবাদের ফলে বচসার সৃষ্টি হয়। ফলে এলাকার কংগ্রেস কর্মীদের মধ্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে। প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘ কয়েকবছর যাবৎ ঐ স্থানে থাকা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর মূর্তি ভেঙে বেআইনি নির্মানকার্য তৈরির চেষ্টার অভিযোগ কংগ্রেসের। শনিবার এলাকায় দলীয় কর্মীদের নিয়ে পৌঁছে যান কংগ্রেস কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শুভঙ্কর সরকার,আমতা বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক অসিত মিত্র,হাওড়া জেলা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সুনীল আদক,পার্থসারথি ভৌমিক,দেবকমল চক্রবর্তী,প্রতিক ঘোষ,শাহিদ কুরেশী,সোমনাথ চ্যাটার্জী সহ অন্যান্য কংগ্রেস নেতৃত্ব। ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিজেরাই হাত লাগিয়ে অস্থায়ীভাবে আপৎকালীন পরিস্থিতিতে আবক্ষ মূর্তির পূনরায় স্থাপন করে দুধ,দই,ঘি,মধূ দিয়ে প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়া সাড়েন স্থানীয় কংগ্রেস নেতৃত্ব। এই ঘটনার প্রসঙ্গে কংগ্রেস কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শুভঙ্কর সরকার বলেন-” সিন্ডিকেট রাজের দল এই রাজ্যটাকে কোন পর্যায়ে দেশের কাছে তুলে ধরতে চাইছে। তাদের ক্ষমতা অপব্যবহারে লজ্জায় মাথা নত হতে চলেছে এরাজ্যের। রাজীব গান্ধী জি সারা বিশ্বের কাছে একজন জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এটা মাথায় রাখা জরুরি তৃণমূল কংগ্রেসের। অবিলম্বে দোষীদের গ্রেপ্তার করা না হলে রাজ্য দেখবে গনতান্ত্রিকভাবে কত বর আন্দোলন সংগঠিত কংগ্রেস করে।
কংগ্রেসের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রোমোটার সহ দুজনকে গ্রেপ্তার করা হলে তিনদিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন আদালত।

শেয়ার করুন