হাওড়া কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গুলিতে চূড়ান্ত অব্যবস্থা প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও পথ অবরোধ পরিযায়ী শ্রমিকদের

নিজস্ব সংবাদদাতা,হাওড়াঃ
কর্মসূত্রে বসবাসকারী একের পর এক পরিযায়ী শ্রমিকরা এসে আসছে এরাজ্যে। আগত পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য সরকারিভাবে বিভিন্ন স্কুল গুলিতে গড়ে তোলা হয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার। হাওড়া জেলার প্রায় সর্বত্রই কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গুলি পরিকাঠামো গত পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে শ্রমিকরা। একাধিক স্কুল গুলিতে বিদ্যুতের ব্যবস্থা থাকলেও নেই খাবার,পানীয় জল ও শৌচাগারের ব্যবস্থা। কোথায় আবার গাদাগাদি করে বহুজনকে একসাথে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ পরিযায়ী শ্রমিকদের। আরও অভিযোগ ঐ সমস্ত কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গুলিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিবারের সদস্য পৌঁছে দিচ্ছে খাবার। জেলাজুড়ে যেভাবে ঐ সমস্ত শ্রমিকদের আক্রান্তের খবর আসছে ফলে সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে খাবার নিয়ে আসতে সংকোচ প্রকাশ করছে একাধিক পরিবারের সদস্যরা। এই সমস্ত একাধিক দাবী দাওয়া নিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে হাওড়ার পাঁচলা থানার অন্তর্গত বনহরিশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্যতম কোয়ারেন্টাইন সেন্টার নয়াচক যদুনাথ হাই স্কুলের পরিযায়ী শ্রমিকরা রানিহাটি – আমতা রোড অবরোধ করে। ফলে স্তব্ধ হয়ে পরে হাওড়া ও আমতাগামী সমস্ত গাড়ি। কার্যত স্কুলের বেঞ্চ পেতে ও থালা বাজিয়ে বিক্ষোভ দেখানো হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পরিযায়ী শ্রমিক বলেন ” স্কুলের চারিদিকে চাষের জমিতে জল জমে আছে। খাবারের কোনো ব্যবস্থা নেই, ছোঁয়াচে রোগ হওয়ায় বাড়ির লোকেরা ভয়ে খাবার দিতে আসতে চাইছে না। ফলে বেশিরভাগ সময় শুকিয়ে থাকতে হচ্ছে। খাবার পর্যাপ্ত জল পাওয়া যাচ্ছে না। একসঙ্গে একটি ঘরে চারজন পাঁচজন করে থাকতে হচ্ছে। কোনো টেষ্ট আজও হয়নি। আমাদের বাড়িতে না থাকতে দিয়ে কেন এখানে আটকে রেখেছে,মারার জন্য “!
অপরদিকে রাজাপুর থানার অন্তর্গত বাসুদেবপুর রামকৃষ্ণ বিদ্যানিকেতন হাই স্কুল কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পানীয় জল,শৌচাগারের চূড়ান্ত অব্যবস্থা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ পরিযায়ী শ্রমিকদের। কার্যত জেলাজুড়ে চূড়ান্ত অব্যবস্থার জন্য ক্ষোভ বিক্ষোভে উত্তাল সমস্ত কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গুলি।




%d bloggers like this: