২০২০ মহাজাগতিক বিস্ময়। দিনের বেলায় নামবে রাত,বিরলতম সূর্যগ্রহণ ২১ জুন

রামকৃষ্ণ চ্যাটার্জী :
“ওঁ ত্র্যম্বকং যজামহে সুগন্ধিং পুষ্টিবর্ধনম।
উর্বারুকমিববন্ধনান্মৃত্যোর্মুক্ষীয় মামৃতাৎ স্বাহা।”।

কাল একুশে জুন রবিবার পৃথিবীতে গ্রহণ স্পর্শ আরম্ভ 9:16 দিবা শুরু
গ্রহণ মধ্যে থাকবে 12:10
গ্রহণ মোক্ষ সমাপ্তি হবে ঘন্টা দুপুর তিনটে চার মিনিট বলয়গ্রাস আরম্ভ 10:19
বলয়গ্রাস সমাপ্তি দিবা দুটো দুই মিনিট।
বলয়গ্রাস সর্বোচ্চ স্থিতি1 মিনিট 17 সেকেন্ড
গ্রহণ স্থিতি 5 ঘন্টা 48 মিনিট গ্রহণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো
মহাজাগতিক এই সূর্যগ্রহণের বিরল দৃশ্য দেখবার জন্য এখন মুখিয়ে রয়েছে ভারত। কিন্তু এই গ্রহনের জ্যোতিষ বিদ্যায় কি ফলাফল উঠে আসে ভালো কি মন্দ তা সময় বলবে। তবে এই গ্রহণ ভূগোলের ইতিহাসে এক নতুন ঘটনা যোগ করল তা বলাই বাহুল্য। বছরের দীর্ঘতম দিন যাকে ভূগোল বিজ্ঞানের পরিভাষায় বলা হয় সামার সলস্টিস, সেই ২১ জুন দেখা যাবে এই আশ্চর্য প্রাকৃতিক দৃশ্য।
যে স্থান থেকে প্রথম আংশিক গ্রাস লক্ষ করা যাবে সেখানে গ্রহণ শুরু হবে সকাল ৯টা ১৫-য়। এই এলাকার মানুষ গ্রহণের সর্বোচ্চ দশা দেখতে পারবেন দুপুর ১২টা ১০-এ। সূর্যগ্রহণ নিয়ে অনেক পৌরাণিক তথ্য রয়েছে। কিছু কিছু নিয়ম মেনেই চলতে হয়।তবে ভারতের সূর্য গ্রহণের ক্ষেত্রে অনেকের মধ্যে এখনো কুসংস্কার এর বাতাবরণ রয়েছে।যে এলাকা থেকে প্রথম পূর্ণগ্রাস দেখা যাবে সেখানে গ্রহণ লাগবে সকাল ১০টা ১৭-য়। শেষতম যে স্থান থেকে পূর্ণগ্রাস গ্রহণ দেখা যাবে সেখানে এই ঘটনার পরিসমাপ্তি ঘটবে দুপুর ২টো বেজে ২মিনিটে। আংশিক গ্রহণ শেষতম যে এলাকা থেকে দেখা যাবে সেখানে গ্রহণ কাটবে দুপুর ৩ টে ০৪ মিনিটে। এই কুসংস্কারের দৃশ্য দেখবার জন্য দূরবীন টেলিস্কোপ বা অন্যান্য বিষয় কে অবলম্বন করেই দেখা উচিত।
খালি চোখে দেখলে চোখ খারাপ হতে পারে। এমনটাই জানাচ্ছে বিজ্ঞানীরা । কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকা থেকে ৬৬% গ্রহন দেখা যাবে এমনটাই আশাবাদী। তবে এক দিনের বেলা অন্ধকারাচ্ছন্ন রাত যে নেমে আসবে তা প্রত্যক্ষ করবে অনেকেই। অর্থাৎ সবমিলিয়ে মোট ৬ ঘণ্টা ধরে বিভিন্ন এলাকা থেকে দেখা যাবে এই প্রাকৃতিক বিস্ময়।

শেয়ার করুন