কোথায় দেশপ্রেম ? দেদার বিকোচ্ছে চিনা আলো

নিউজ ডেস্ক: শহরজুড়ে রমরমিয়ে বিক্রি হচ্ছে চিনা আলো। যেখানে চিনা দ্রব্য বয়কট করবার জন্য কিছুদিন আগেও জোরালো দাবী উঠেছিল। কিন্তু দীপাবলিতে সেই চিনা আলোর বাজার কিন্তু আকাশছোঁয়া। মোমবাতি, আলো ছাড়িয়ে এখন অনেকেই হাত বাড়াচ্ছেন এই আলোর দিকে।
ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা বাড়লেই চিনা সামগ্রী বন্ধ করার ডাক দেওয়া হয়। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে শুরু হয়ে যায় ‘চিনা সামগ্রী বয়কট করুন’। দেশপ্রেমের জন্য কেউ ভেঙে ফেলেন চিনা টিভি কিংবা মোবাইল। সেখানে প্রশ্নটা জানবাজার হোক বা গরিয়াহাট। সবখানেই এক জিনিস।
কোনও লাইটের দাম ২০ টাকা, কোনওটার আবার ২২০ টাকা। প্লাস্টিকের তৈরি মোমবাতি এবারে বিশেষ চমক, তারই দাম দশ টাকা। এছাড়াও বিভিন্ন স্টিক লাইট, স্টার লাইট তো আছেই। আবার অন্যদিকে বাজারে মাটির প্রদীপের দোকান অনেকটাই খালি। খদ্দের টানতে ডিজাইনার প্রদীপকেও রঙ করে আরও আকর্ষণীয় করে তুলছেন বিক্রেতারা। কিন্তু মাটির প্রদীপ কিনতে ক্রেতাদের বড্ড অনীহা। কোভিড সিচুয়েশনের জেরে সারা দেশে অনেকেরই চাকরি চলে গেছে। যাঁদের রয়েছে চাকরি, তাঁদেরও অনেকেরই পকেটে টান। ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি আলোর থেকে চায়না আলোগুলির তুলনামূলক দাম কম। তাই পকেট বুঝে অনেকেই চায়না আলো কিনতে বাধ্য হচ্ছেন। কিন্তু চায়না আলো কতদিন চলবে তার নিশ্চয়তা নেই। ক্রেতাদের অবশ্য তাতে বিশেষ কিছু যায় আসে না।

শেয়ার করুন