বাংলায় আরো ২ হাজার ৭০৭ কোটি টাকা আমফান ক্ষতিপুরণ দিল কেন্দ্র

দেশ: ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের প্রায় ছয় মাস অতিক্রান্ত হয়ে যাওয়ার পরও আজও সেই ধাক্কা সামলে উঠতে পারেনি উপকূল এলাকার মানুষজন। এরূপ পরিস্থিতিতে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষতিপূরণের জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ২ হাজার ৭০৭ কোটি টাকা বরাদ্দ করল । এরূপ পরিস্থিতিতে শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এর নেতৃত্বে ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স কমিটি বৈঠকে ঠিক হয়,বাংলা সহ আরো ৬ টি রাজ্যকে ঘূর্ণিঝড় ও বন্যায় ক্ষতিপূরণের জন্য অর্থসাহায্য দেওয়া হবে।এই ৬ টি রাজ্যের জন্য রাজকোষ থেকে ৪ হাজার ৩৮১ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়। প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার জন্য বাংলায় সবচেয়ে বেশি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে,এছাড়াও ওড়িশা,মহারাষ্ট্র,কর্ণাটক,সিকিম ও মধ্যপ্রদেশে টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। বেশ কয়েক মাস ধরে ঘূর্ণিঝড় ক্ষতিপূরণে স্বজনপোষণ ও দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজ্যের রাজনীতি।

এরূপ পরিস্থিতিতে আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করতেই তৃণমূলকে খোঁচা দিয়ে কথা বলতে শুরু করেছে কেন্দ্র বিজেপির নেতারা ৷ দলের সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন,পরবর্তী সময় কেন্দ্রীয় বঞ্চনার কথা বলতে পারবে না তৃণমূল।ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আগে যে টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল তার অনেকাংশই তৃণমূল মেরে দিয়েছিল,এইবার যেন ক্ষতিগ্রস্তরা টাকা পায়। এরূপ পরিস্থিতিতে তৃণমূল অভিযোগ থেকে পিছু হটতে নারাজ। ফিরহাদ হাকিম বলেছেন ঘূর্ণিঝড় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সরকার প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকা খরচ করেছেন। তার মতে কেন্দ্রের টাকা অনেক আগেই চলে আসার কথা। এছাড়াও কেন্দ্রের কাছে রাজ্যের পাওনা প্রায় ৫৪ হাজার কোটি টাকা ৷ এখনো তার কোন হদিস নেই।

চলতি বছর গত মে মাসে বাংলার বুকে আছড়ে পড়েছিল ঘূর্ণিঝড়। এই ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল পূর্ব মেদিনীপুর এবং দুই চব্বিশ পরগনা। ঘূর্ণিঝড়ের পর প্রধানমন্ত্রী বাংলার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো পরিদর্শন করে ক্ষতিপুরনের আশ্বাস দিয়েছিলেন ৷ এবার কেন্দ্র সেই দাবী পুরন করল ৷ তবে রাজ্য বিজেপি নেতাদের শংকা কেন্দ্রের দেয়া সেই টাকা আসল ক্ষতিগ্রস্থরা পাবে তো ?

শেয়ার করুন