আলুর পেঁয়াজের পর এবার ভোজ্যতেলে ঝাঁঝ বাড়লো

নয়না দত্ত: প্রথমেই বেড়েছিল আলু পিয়াজ এর দাম ৷ তার পরপরই সরষে,সয়াবিন,সানফ্লাওয়ার এর মত রান্নায় ব্যবহৃত তেলের দামের হঠাৎ লাগামছাড়া কেন্দ্র সরকারের মাথাব্যথার কারন হয় দাঁড়িয়েছে ৷ একদিকে আলু পিঁয়াজের চড়া দাম বৃদ্ধির কারণে সাধারণ মানুষ দিশেহারা তাঁর সঙ্গে গত কয়েক মাস ধরে বাড়ছে রান্নার তেলের দাম I সাধারণ মানুষের নাজেহাল অবস্থা I টাইমস অফ ইন্ডিয়ার রিপোর্ট অনুযায়ী, গত এক বছরে সব ধরনের ভোজ্য তেলের দাম গড়ে কুড়ি থেকে ত্রিশ শতাংশ বেড়েছে গিয়েেে Iএগুলির মধ্যে পামওয়েল,বনস্পতি, সানফ্লাওয়ার,সরষে,সোয়াবিন ইত্যাদির তালিকায় সব ধরনের তেল রয়েছে I

এই সপ্তাহের শুরুর দিকে অমিত শাহ এর নেতৃত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়I অমিত শাহ এর মতে আমদানি বাড়িয়ে পেঁয়াজের মূল্য কিছুটা কমানো সম্ভব হয়েছে, সরকারি হস্তক্ষেপে কিছুটা কমেছে আলুর দাম ৷ কিন্তু তেলের দাম বেড়েই চলেছে। এর লাগাম টেনে ধরার পরিকল্পনা করা হচ্ছে ৷
ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তর এর তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার গোটা দেশে প্রতি ১ লিটার সরষের তেলের দাম ছিল ১২০ টাকা, এক বছর আগে যা ছিল ১০০ টাকা। সানফ্লাওয়ার এর মতো অন্যান্য সমস্ত তেলের মূল্যও একইভাবে বেড়েছে । ২০১৯ সালের ১৮ অক্টোবর দেশে এক লিটার সয়াবিন তেলের দাম ছিল ৯০ টাকা,বর্তমানে প্রতি লিটার তেলের দাম হয়েছে ১১০ টাকা।
টাইমস অফ ইন্ডিয়ার ওই প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে কলকাতায় বৃহস্পতিবার খুচরা বাজারে প্রতি লিটার তেলের দাম ছিল ১৩৭ টাকা ৷ এক বছর আগে দাম ছিল ১০১ টাকা। কলকাতার তুলনায় মুম্বাই,দিল্লি, চেন্নাই এর মতন শহরগুলিতে ভোজ্যতেলের দাম আরো বেশি। বৃহস্পতিবার সানফ্লাওয়ার অয়েল এর মূল্য ১৩৫ টাকা এবং সোয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছে ১১৩ টাকা প্রতি লিটারে। বছরখানেক আগে দেখতে গেলে দেখা যাবে সেই সমস্ত তেলের দাম ছিল যথাক্রমে ৯৪ থেকে ১০২ টাকার মধ্যে তার দাম বৃদ্ধি পেয়ে এখন এই জায়গায় এসে পৌঁছেছে।এছাড়া দিল্লি মুম্বাই চেন্নাই এর মতন শহরগুলিতে কলকাতার থেকেও প্রতি লিটার সরষের তেলের মূল্য অনেক বেশি। যেখানে দিল্লিতে এক লিটার তেলের দাম ছিল ১৫০ টাকা সেটা ছাড়িয়ে হয়েছে ১৫৫ টাকা এবং বোম্বেতে সেই তেলের মূল্য ১৬০ টাকা। সরকার পামঅয়েলের মূল্য কিছুটা কমালে ভোজ্য তেলের মূল্য অনেকটা কমানো যেতে পারে কারণ দেশে উৎপাদিত পাম অয়েলের ৭০ শতাংশ খাদ্য শিল্প করণে ব্যবহার করা হয়। খবর সূত্রে জানা যায় দেশে ছয় মাসের মধ্যে অনেকটাই কম পাম অয়েল মালয়েশিয়া থেকে এসেছে সেই কারণেই তেলের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। সাধারণ জনগণের নাজেহাল অবস্থা হয়েছে রান্নার তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে।

শেয়ার করুন