নারায়ণপুর অঞ্চল বিজেপির উদ্যোগে বিজয় সম্মিলনী অনুষ্ঠান : বিজেপিতে যোগদান

বাবলু প্রামানিক,দঃ ২৪ পরগনা : কাকদ্বীপ মন্ডল ৪ এর অন্তর্গত নারায়ণপুর অঞ্চল বিজেপির উদ্যোগে বিজয় সম্মিলনী অনুষ্ঠান অনুুষ্ঠিত হয়েছে ৷ বৃহস্পতিবার এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মথুরাপুর জেলা বিজেপির জেলা সভাপতি দীপঙ্কর জানা। এদিন অনুষ্ঠানে তৃণমূল ও সিপিএম ছেড়ে শতাধিক নেতাকর্মী ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করেন। দীপঙ্কর জানা বলেন “আজ ভারতীয় জনতা পার্টির বিজয় সম্মিলনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বিভিন্ন দল ছেড়ে কয়েকশ’ নেতাকর্মী নরেন্দ্র মোদীজির অনুপ্রেরণায় অনুপ্রাণিত হয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করেছেন । শাসকদল তৃণমূল এর অত্যাচারে অত্যাচারিত নিপীড়িত হয়ে মানুষ আজ অসহায়। কেন্দ্রে বিজেপি সরকার এবং আমাদের জাতীয় নেতা নরেন্দ্র মোদীজির চিন্তা ধারা বাংলার মানুষের মন জয় করে নিয়েছে। বুলবুল তথা আমফানের দুর্নীতিতে জর্জরিত এই তৃণমূল সরকার। চিটফান্ড কেলেঙ্কারি থেকে শুরু করে মানুষের ত্রাণের টাকা পর্যন্ত লুট করছে তৃণমূল । দিকে দিকে ভারতীয় জনতা পার্টির সৈনিক বাড়ছে। তিনি বুঝতে পেরেছেন রাজনৈতিক ময়দানে তৃনমূল হেরে গেছে। তাই দিকে দিকে আমাদের ভারতীয় জনতা পার্টির সৈনিকদের নির্মমভাবে হত্যা করা হচ্ছে নতুবা মামলায় ফাঁসিয়ে জেলে ঢুকানো হচ্ছে । এ সময় মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন “বিধানসভায় আপনাকে গঙ্গাসাগরে বিসর্জন দিয়ে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বাংলার দামাল ছেলে দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে পশ্চিমবঙ্গে ভারতীয় জনতা পার্টি সরকার গঠন করতে চলেছে”। শুধু আজ নয় প্রতিনিয়ত প্রতিদিন বিভিন্ন দল ছেড়ে ভারতীয় জনতা পার্টির ছত্রছায়ায় মানুষ এসে দাঁড়াচ্ছেন। আমরা তাদেরকে সাদরে স্বাগতম জানাই ।
প্রফুল্ল কুমার দাস বলেন আমি তৃণমূলের একজন সৈনিক ছিলাম, কিন্তু আজ একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে যখন দেখি গণতন্ত্রের নামে রাজতন্ত্র, একনায়কতন্ত্র তৃণমূলের যথেষ্ট মিথ্যাচার লাঞ্ছনা-বঞ্চনার জর্জরিত মানুষ মানুষকে যথারীতি শোষণ করার একটা যাতাকল। সেই যাতাকলে আমি নিষ্পেষিত হয়ে আমার কিছু সমর্থক কে নিয়ে আমি আজকের ভারতীয় জনতা পার্টির পতাকা ধরে মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি দীপঙ্কর জানা মহাশয় এর হাত ধরে যোগদান করলাম।
তিনি বলেন আমাদের লক্ষ্য আমি সারা জীবন ধরে শিক্ষকতা সাথে যুক্ত ছিলাম আজ আমি জীবনের শেষ প্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছি তাই এখানে আমার এখন অনেক ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত আছেন এবং শুধু তাই নয় তারা আপনাদের আওতায় আপনাদের দায়িত্বে আপনাদের মন্ডলে, তারা কিন্তু এখনো কাজকর্ম করে চলেছে । এবং আমারই ছাত্র কার্তিক মান্না মহাশয় তিনি অকপটে স্বীকার করলেন তার জন্য আমি অত্যন্ত আনন্দিত এবং আপ্লুত ও গর্বিত।




%d bloggers like this: