বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ‘ধামসা মাদল’ এর পাল্টা দিলেন অনুব্

রোহিত সেখ, বীরভূম: দুর্গাপুরের চায়ের চর্চা অনুষ্ঠানে বিজেপির নেতা সায়ন্তন বসু গতকাল বলেছিলেন অনুব্রত মণ্ডল নামের ভাইরাসদের সঙ্গে লড়াই চলছে । দ্রুত বাজারে করোনার ভ্যাকসিনের মতো অনুব্রত মণ্ডল ভ্যাকসিন আসছে । আরও কয়েকটি ভাইরাসের ভ্যাকসিন আসছে । ” তিনি আরও বলেন,”কয়কদিন পরে পিসি ও ভাইপো ছাড়া দলে কেউ থাকবে না ।”এদিন তার পাল্টা জবাব দিলেন অনুব্রত মণ্ডল তিনি বললেন “কে ওই টেকো টা , ওর চুল নেই, ওর কথা কিছু বলব না “। পাশাপাশি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন “অনেকজন অক্সিজেন নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন দম বন্ধ হলে বিজেপি দরজা খোলা আছে আসতে পারেন” নাম না করেই অনুব্রত মণ্ডল কে কটাক্ষ করেছিলেন দীলিপ ঘোষ । গতকালই এক কর্মীসভায় তারই জবাব দিয়েছিলেন অনুব্রত ৷ বলেছিলেন “দিলীপ ঘোষকে আমি নাম করে বলছি, আমার ব্লক স্তরের কর্মীদের সঙ্গে মিশে তাদের পাশে থাকুক”৷ “ডোবার জলে ডুবিয়ে স্যানিটাইজ ফ্যানিটাইজ করে নেব ” “ওদের তো গোবর মাখা স্বভাব” । এরই পাল্টা জবাব দিয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ ৷ বলেছিলেন, “আমি বীরভূমে যাচ্ছি ৷ ডায়লগবাজি করে লাভ নেই। ভলিউমটা কমেছে খানিকটা। আমার মনে হয় ধীরে ধীরে স্পিকার কেটে যাবে।” ” আমি ধামসা মাদল নিয়ে যাচ্ছি” ”ধামসা ও বাজায়নি,মাদলও বাজাইনি” । তারই উত্তরে চ্যালেন্জ ছুড়ে দিলেন অনুব্রত মণ্ডল ৷ আজ ইলামবাজারে কর্মীসভায় বলেন, ” সভা করার জন্য জায়গা দিয়েছি, সভা করুক” সব দলেরই তো মিটিং করার অধিকার আছে , করুক না , দেখার দরকার আছে তো ৷ কত লোক আছে দেখব ৷’ বড় গেরস্থ হলে গরুর পাল অনেক বড় হয়, ছোট গেরস্থ হলে দশ বাড়ির গরু নিয়ে মাঠে যায় ” ‘আমিও ২৬ তারিখে বার্তা দিয়ে দেব ৷

শেয়ার করুন